• ঢাকা
  • বৃহঃস্পতিবার , ২০ জুন ২০২৪ , রাত ০৮:৫৮
ব্রেকিং নিউজ
হোম / জেলা

ঘূর্ণিঝড় রেমাল :বাগেরহাটে বিভিন্ন খাতে ৬৪৪ কোটি টাকার ক্ষতি

রিপোর্টার : নিজস্ব প্রতিবেদক :

৮০ বার দেখা হয়েছে ।

ঘূর্ণিঝড় রেমাল :বাগেরহাটে বিভিন্ন খাতে ৬৪৪ কোটি টাকার ক্ষতি ই-পেপার/প্রিন্ট ভিউ

  • ক্ষয়ক্ষতির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ জেলা প্রশাসনের।

ঘূর্ণিঝড় রেমালের তান্ডবে লন্ডভন্ড হয়েছে পুরো বাগেরহাট জেলা। ঝড়ের ৭ দিন পরে রবিবার জেলার বিভিন্ন খাতের ক্ষয়ক্ষতির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ করেছে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসনের হিসেব মতে এই ঝড়ে ২৭টি খাতে ৬৪৪ কোটি ৬৭ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ঝড়ের সময় গাছ পরে মারা গেছেন এক নারী এবং আহত হয়েছেন অন্তত ৭ জন।

জেলা প্রশাসনের তথ্য অনুযায়ী, ক্ষয়ক্ষতির উলে­খযোগ্য খাতগুলো হচ্ছে, কৃষি, মৎস্য, বিদ্যুৎ, সড়ক, পানি, বন, নৌকা-জাল ও ট্রলার। এবারের ঝড়ে ৪ হাজার ৩৪৫ হেক্টর ফসলি জমির ক্ষতি হয়েছে, যা টাকার অংকে ৭৯ কোটি ৮৫ লক্ষ। ৩৫ হাজার মৎস্য ঘের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এতে চাষিদের ক্ষতি হয়েছে ৭২ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা। ১ হাজার ৭২১ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পল­ী বিদ্যুতের ৫৫ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে। ৭৬১ কিলোমিটার সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের ক্ষতি হয়েছে ৫৫ কোটি টাকা। এছাড়া বিভিন্ন সড়কে থাকা ৫৩টি ব্রিজ ও কালভার্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, যা টাকার অংকে এক কোটি ৩৬ লক্ষ।  ৪৫ কিলোমিটার বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে ১১ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা। ১০৫ হেক্ট বনভূমি নষ্ট হয়ে ৩ কোটি ৩০ লক্ষ টাকা এবং ১২ হেক্টর নার্সারি ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ১৪ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ৯ হাজার ১২৭টি পুকুর জলাশয়সহ সুপেয় পানির বিভিন্ন উৎস্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ৪৪ কোটি ৫৭ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া ৬ শতাধিক নৌকা-ট্রলার এবং ৫৭২টি জাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে জেলে ও নৌকার মালিকদের ২ কোটি ৪১ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এর বাইরে ৬৮ হাজার ৪১৯টি ঘর-বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে ১৩ হাজার ১২৪টি ঘর সম্পূর্ণ ও ৫৫ হাজার ২৯৫টি ঘর আংশিক বিদ্ধস্ত হয়েছে।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাঃ খালিদ হোসেন বলেন, ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী সময়ে আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করেছি। বিভিন্ন দপ্তর থেকে আমরা তথ্য সংগ্রহ করেছি। বাগেরহাটে ২৭টি খাতে ৬শ’ ৪৪ কোটি ৬৭ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের কিছু সহযোগিতা করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের অনুমতি ও অনুমোদন সাপেক্ষে আরও মানুষকে সহযোগিতা করা হবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।


সারাদেশ

আরও পড়ুন